বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম (সবচেয়ে সহজ নিয়ম)

বিকাশ (Bkash) একাউন্ট ডিলিট বা বাতিল করব কিভাবে? এই বিষয় নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে। তাদের জন্যই আমাদের এই পোস্ট বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম।

আমাদের অনেক সময় বিভিন্ন কারণে Bkash Account বন্ধ করার প্রয়োজন পরে। যেমনঃ একই পরিবারে অনেকগুলো একাউন্ট থাকলে।

কিংবা বিকাশের বর্তমান তথ্য মতে নাম্বার পরিবর্তন করতে হলেও আগের একাউন্ট বন্ধ করে নতুন নাম্বারে একাউন্ট খুলতে হবে।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম পালন করতে হবে। আশা করি আমাদের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি সব বুঝে যাবেন।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

আপনাকে বিকাশ একাউন্ট ডিলিট বা বাতিল করতে কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। তবে টেনশনের কিছু নেই।

একাউন্ট বন্ধ করা একেবারে একটি সহজ কাজ। যদি আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড (NID=National ID Card) ঠিক থাকে।

অথবা আপনি যদি অন্য কোনো ডকুমেন্ট দিয়ে একাউন্ট খুলে থাকেন তাহলে সেটির প্রয়োজন হবে। যেমনঃ পাসর্পোড, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি।

আশা করছি আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা ডকুমেন্টটি ঠিক আছে। তবে চলুন আমারা ধাপে ধাপে দেখে নেই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সমূহ।

ধাপ-১: ব্যালেন্স শূন্য করা

ব্যালেন্স শূন্য করা

বিকাশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী Bkash একাউন্ট বন্ধ করার প্রথম শর্ত হচ্ছে একাউন্ট ব্যালেন্স শূন্য বা জিরো (0) করতে হবে।

এখন অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে ব্যালেন্স জিরো করব কিভাবে? বিকাশ একাউন্টে তো সব সময় পয়সা থাকেই। যেমনঃ ০.৭১ বা ২১.৫৮ টাকা।

বলে রাখা ভাল যে অনেক ব্যাংক একাউন্টের মত আপনি চাইলে বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স শূন্য করতে পারবেন।

কিন্তু সেটা কিভাবে? সচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে আপনার প্রিয়জনের কারো নাম্বারে সেন্ড মানি করে দেওয়া।

আপনি যদি বিকাশ অ্যাাপ (Bkash App) ব্যবহার করে থাকেন তাহলে ৫০০ টাকা পর্যন্ত সেন্ড মানির জন্য কোনো চার্জ নেই।

তবে *২৪৭# ডায়াল করে সেন্ডমানি করলে প্রতি বারের জন্য ৫ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে। তাই সেন্ড মানি চার্জ মাথায় রেখে বাকি টাকা প্রিয় জনের নাম্বারে সেন্ড করে দিতে পারেন।

মনে রাখবেন আপনি চাইলে দশমিকের পরের পয়সাগুলোও সেন্ড মানি (Send money) করতে পারবেন। প্রয়োজনে

ধাপ-২: প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র

প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র

এখানে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র বলতে আপনার মূল জাতীয় পরিচয়পত্র/ স্মার্ট কার্ড/ড্রাইভিং লাইসেন্স/পাসপোর্ট/অনলাইন এনআইডি প্রিন্ট কপি বোঝানো হয়েছে।

মনে রাখবেন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য আপার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র সঠিক থাকতে হবে।

কারণ আইডি কার্ডে (NID) সমস্যা থাকলে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে পারবেন না।

তাই আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড ঠিক রয়েছে কিনা তা যাচাই করে নিবেন। ঠিক থাকলে আপনি ফাইনাল ধাপের জন্য প্রস্তুত।

আরও পড়ুন:

ধাপ-৩: কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ

কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ

বাড়িতে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলা গেলেও বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে আপনাকে কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে যোগাযোগ করতে হবে।

তাই প্রথমে Bkash একাউন্ট শূন্য করার কাজটি সেড়ে ফেলুন। তারপর আপনার প্রয়োজনীয় কাগজমোবাইল ফোন নিয়ে কাস্টমার কেয়ারে চলে যান।

এই ক্ষেত্রে প্রশ্ন হতে পারে অন্য কেউ গেলে হবে কিনা? মনে রাখবেন একাউন্ট বন্ধ করতে হলে যার নামে একাউন্ট করা হয়েছে তাইকেই যেতে হবে।

তারপর কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে বিকাশের প্রতিনিধিকে বলুন– “আমি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে চাই”।

আশা করি আপনি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সমূহ বুঝতে পারছেন। তাছাড়া এখানে দেখুন বিকাশ একাউন্টের ক্যাশ আউট চার্জ

আরও পড়ুন:

Give a Comment