নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে করণীয় (Nagad Pin Reset)

ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং নগদ একাউন্টের পাসওয়ার্ড বা পিন ভুলে গেছি? এই আর্টিকেলে দেখানো হয়েছে কিভাবে নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে নতুন পিন (Nagad pin code forgot password) পাবেন।

এক সময় নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে বেশ ঝামেলায় পড়তে হত। এমন কি তাদের হেল্পলাইনে কলও যেত না।

কিন্তু এই কঠিন সমস্যা সহজ করার জন্য নগদ বিকাশের মত নতুন একটি সুবিধা চালো করেছে। যার ফলে আপনি *১৬৭# ডায়াল করেই নগদ পিন রিসেট করতে পারেন।

নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে করণীয়

নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে

নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে নতুন পিন বা পাসওয়ার্ড পাওয়ার নিয়ম খুবই সহজ। বেশ কয়েকটি উপায় রয়েছে নতুন পিন রিসেট (reset Nagad pin code) করার।

আমারা নিচে দুটি নিয়ম দেখিয়েছি যেকোনো একটি নিয়ম মেনে আপনি আপনার নগদ একাউন্টের ভুলে যাওয়া পিন ঠিক করতে পারনে। নিয়ম দুটি হলঃ

  • *১৬৭# ডায়াল করে
  • হেল্পলাইনে কল দিয়ে

*১৬৭# ডায়াল করে নগদ পিন রেসেট করার নিয়ম

আমাদের মতে *১৬৭# ডায়াল করে নগদ একাউন্টের পিন ঠিক করার নিয়মটি বেশ সহজ। নগদ একাউন্টের পিন *১৬৭# ডায়াল করে ঠিক করতে নিচের নিয়ম অনুসরণ করুন।

  • প্রথমে *১৬৭# ডায়াল করুন
  • 8 নাম্বার অপশন PIN Reset -এ যান
  • এখন Forgot Pin -এ যেতে হবে
  • NID নাম্বার প্রবেশ করান (যেটি দিয়ে একাউন্ট খোলা হয়েছে)
  • NID কার্ড অনুযায়ী জন্ম সাল লিখুন (যেমনঃ 1998)
  • একাউন্টে লেনদেন (যেমনঃ Cashout, Mobile Recharge, Sendmoney, Payment etc) করে থাকলে Yes দিন অথাবা No -তে প্রবেশ করুন
  • লেনদেন করে থাকলে তা কোন ধরনের সিলেক্ট করুন এবং হুবহুব টাকার পরিমাণ দিন। (না করে থাকলে এই অপশন আপনার জন্য নয়)
  • পিন রিসেট সফল হওয়ার একটি মেসেজ পেলে আবার *১৬৭# ডায়াল করুন
  • চার সংখ্যার নতুন পিন দিতে হবে। তবে এই ধরনের পিন দিবেন না। যেমনঃ ১১১১, ০১১১, ০৭৮২ ইত্যাদি।
  • পূণরায় সেই পিন দিয়ে পিন নাম্বার কনফ্রাম করুন

এই ধাপগুলো সঠিকভাবে সম্পূর্ণ হলে আপানার একাউন্ট সচল হবে এবং আপনি সকল অপশন দেখতে পারবেন।

হেপ্ললাইনে কল দিয়ে নগদ একাউন্টের পিন রিসেট

অনেকের উপরের নিয়মটি ঝামেলা মনে হতে পারে তারা এই নিয়মটি অনুসরণ করতে পাবেন। এই নিয়মটিও বেশ সহজ।

তাই আমাদের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন এবং নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

নগদ কাস্টমার কেয়ারে কথা বলুন

হেল্পলাইনে কথা বলুন

প্রথমে আপনাকে Nagad কাস্টমার কেয়ারে কল করতে হবে। তাই আপনার ফোন নাম্বার থেকে নগদ হেল্পলাইনে কল করুন।

তবে একটি বিষয় অবশ্যাই খেয়াল রাখবেন। চেষ্টা করবেন যে নাম্বার থেকে Nagad Account খোলা হয়েছে সেই নাম্বার থেকে কল দিতে।

কল দেওয়ার পর আপনি আপনার সমস্যার কথা বলুন। আপনি চাইলে এইভাবে বলতে পারেন— “আমি আমার নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেছি?

অথবা আপনি নিজের মত করে বলতে পারেন তাতে কোনো সমস্যা নেই। তারা আপনাকে যাহায্য করবে।

আপনি চাইলে এখান থেকে দেখে আসতে পারেন নগদ হেল্পলাইন নাম্বার

একাউন্টের ইনফরমেশন প্রদান

নগদ একাউন্টের পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে

যে কেউ আপনার একাউন্টের পিন বা পাসওয়ার্ড রিসেটের জন্য রিকুয়েস্ট পাঠাতে পারে। তাই আপনি আসল ব্যাক্তি কিনা তা বোঝার জন্য নগদ আপনার কাছে কিছু তথ্য জানতে চাইবে।

টেনশনের কিছুই নেই। তারা আপানাকে খুব সহজ কিছু প্রশ্ন করবে। যেমন আপনার মা-বাবার নাম, আপনার জন্ম তারিখ, ঠিকানা ইত্যাদি।

তাছাড়া তারা আপনার Nagad একাউন্টের সর্বশেষ লেনদেনের পরিমাণ জানতে চাইতে পারে। মনে না থাকলে পুরুনো মেসেজ থেকে তা জানতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ডে এই তথ্য গুলো যেভাবে আছে ঠিক সেইভাবে বলতে হবে।

অথবা অন্য কোনো ডুকুমেন্ট দিয়ে একাউন্ট খুললে সেই অনুযায়ী বলতে হবে। যেমনঃ ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট ইত্যাদি।

আপনি চাইলে আইডি কার্ডটি সামনে রেখে কল দিতে পারবেন। তাতে আপনারই বলতে সুবিধা হবে।

নতুন পিন নাম্বার সেটাপ করুন

নগদ একাউন্ট নতুন পিন সেটাপ

সঠিক তথ্য প্রদান করলে নগদ আপনাকে সাথে সাথে একটি মেসেজ সেন্ড করবে। সেই মেসেজে একটি টোকেন কোড থাকবে।

এই টোকেন ব্যাবহার করেই আপনি নতুন পিন নাম্বার সেটাপ করতে পারবেন। এজন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে পারেন।

  • প্রথমে ৬ সংখ্যার টোকেন নাম্বারটি মনে রাখুন বা কপি করুন।
  • তারপর *167# ডায়াল করতে হবে।
  • এখন Enter New Pin নামে একটি অপশন আসবে সেখানে ৬ সংখ্যার টোকেন নাম্বারটি দিতে হবে।
  • তারপর আবার প্রায় একই অপশন আসবে সেখানে আপনি নতুন পিন নাম্বার হিসাবে যা রাখতে চাচ্ছেন তা দিতে হবে।
  • সাধারণত এই পিন নাম্বার চার সংখ্যার হয়ে থাকে। তবে কোনো ক্রমিক সংখ্যা দেওয়া যাবে না।
  • পরিশেষে পুনরায় উক্ত পিন নাম্বার দিয়ে কনফ্রাম করুন।

এই ধাপ সমূহ অনুসরণ করে আপনার নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলেও নতুন পিন নাম্বার সেটাপ করতে পারবেন।

তবে পিন নাম্বার মনে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ। তাই আপনি চাইলে পিন নাম্বারটি সেফ কোনো ডায়রি বা খাতায় লিখে রাখতে পারেন।

আর হ্যাঁ কারো সাথে পিন নাম্বার শেয়ার করবেন না।

আরও পড়ুন:

2 Comments

  1. DABU অক্টোবর 5, 2020

Give a Comment